Blog Section

প্রতিদিন নিয়মিত দই খান আর ওজন কমান

প্রতিদিন নিয়মিত দই খান আর ওজন কমান !

কারন দই আমাদের রক্তের সেরাম কোলেস্টেরল লেভেল কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে এবং ক্যান্সার হওয়া থেকে রক্ষা করে।

সাধারণত দইকে আমরা খুবই উপাদেয় এবং পুষ্টিকর খাবার হিসাবে চিনি।দুগ্ধ জাতীয় খাবারের মধ্যে একমাত্র দই আপনাকে দেবে ক্যালসিয়াম এবং প্রোটিনের অফুরন্ত পুষ্টি যোগান। কিন্তু সুস্বাস্থ্য ধরে রাখতে এবং ওজন কমাতে দইয়ের অনন্য ভূমিকার কথা আমরা যদি জানতাম তাহলে প্রতিদিন অন্তত এক বাটি করে দই অনায়াসে সাবার করে ফেলতাম। মেদ কমাতে দইয়ের ভূমিকা বর্তমান যুগে বিজ্ঞানসম্মত ভাবে প্রমাণিত, বিশেষ করে পেটের মেদ কমাতে এটি সবচেয়ে বেশি কার্যকরী অর্থাৎ রক্তের সেরাম কোলেস্টেরল লেভেল কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে।

ভুঁড়ি বিহীন সুন্দর পেটের জন্য দই:

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব তিনিসি এর গবেষক প্রফেসর মাইকেল এর মতে, আপনি প্রতিদিন আড়াইশ গ্রাম দই খেতে পারলে এক মাসের মধ্যে কোমড়ের মাপ এক ইঞ্চি কমিয়ে ফেলতে পারবেন। গবেষণায় আরো দেখা গেছে যারা ডায়েট কন্ট্রল করেন তাদের তুলনায় যারা নিয়মিত দই খান তাদের ২২% পুরো শরীরের ওজন এবং পেটের মেদ ৮১% বেশি কমে যায়! সত্যিই অবাক করা তাই না?

যাদের ওজন বেশি তাদের শরীরের ফ্যাট কোষ থেকে কর্টিসল নামক একটি হরমোন তৈরী হয়। এটি কোমড় এবং পেটের চারপাশে আরো ফ্যাট জমতে উদ্বুদ্ধ করে। দইয়ে আছে প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম, যা কর্টিসল তৈরী হতে বাধা দেয়। এর অ্যামিনো এসিড ফ্যাট বার্ণ করে আপনার শরীরের ওজন কমাতে যুগান্তকারী ভূমিকা পালন করে।

এ ছাড়া যারা দুধের ল্যাক্টোজ হজম করতে পারেন না তারা দই খেতে পারেন কারন তারা সহজে দইকে হজম করতে পারবেন।

দই

 

 

এছাড়া আপনি দইয়ের মধ্যে পাচ্ছেন প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন এবং মিনারেল যেমন ফসফরাস, পটাসিয়াম, রিবোফ্লাভিন, ভিটামিন বি৫, বি১২ সহ আরো অনেক অত্যাবশ্যকীয় উপাদান, যেগুলো অন্যান্য খাবার থেকে পেতে হলে আপনাকে প্রচুর পরিমান ক্যালরি গ্রহন করতে হতো। কিন্তু দইয়ে এসবই আপনি পাচ্ছেন অনেক কম ক্যালরি গ্রহন করে। দইয়ের মধ্যে এক ধরনের উপকারি ব্যাকটেরিয়া থাকে, যে গুলো আমাদের

তাহলে আর দেরি কেন? এক্ষুনি ঘরে নিজে নিজে দই বানিয়ে ফ্রিজে রেখে খেতে পারেন।

More